Syed Anas Pasha

Syed Anas Pasha

ব্রিটেনে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা ভাবমূর্তি ও সম্মান বাড়াচ্ছে


সৈয়দ আনাস পাশা, লন্ডন করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
 এওয়ার্ড দিচ্ছেন রোশনারা আলী এমপি
লন্ডন: এ প্রজন্মের ব্রিটিশ বাংলাদেশিরা শিক্ষা-দীক্ষায় যে কৃতিত্বের সাক্ষর রাখছে তা ব্রিটেনের মূলধারায় বাংলাদেশি কমিউনিটির ভাবমূর্তি ও সম্মান বৃদ্ধি করছে। নতুন প্রজন্মের এই কৃতিত্ব ভবিষ্যতে ব্রিটেন-বাংলাদেশের পারস্পরিক সম্পর্ক আরও জোড়দার করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে কৃতী ব্রিটিশ বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীদের সম্মানে আয়োজিত এক সংবর্ধনায় বক্তারা এসব কথা বলেছেন।

লন্ডনে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার ড. সাইদুর রহমান খানের সভাপতিত্বে শনিবার লন্ডনের ব্যাডেন পাওয়েল হলে অনুষ্ঠিত কৃতি ব্রিটিশ বাংলাদেশী ছাত্রছাত্রীদের এই সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ব্রিটেনের অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের চেয়ারম্যান মেইন এমপি, মিসেস নিকি মরগান এমপি, রোশনারা আলী এমপি, জিম ফিজপ্যাট্রিক এমপি, স্টিফেন টিমস এমপি, ফ্রাঙ্ক ডবসন এমপি, চার্লস টেনক এমইপি, সাবেক এমইপি রবার্ট ইভান্স, ব্যারোনেস সারাহ লুডফোর্ড, মিসেস জিন ল্যামবার্ট, ক্যামডেন কাউন্সিলের কাউন্সিলার নাসিম আলী ওবিই ও টাওয়ার হ্যামলেটস এর নির্বাহী মেয়র লুৎফুর রহমান, বিশিষ্ট সাংবাদিক আব্দুল গাফফার চৌধুরী ও কারিকুলাম স্ট্র্যাটেজির ম্যানেজার মিস হেলেন ইমাম।

বক্তারা কৃতি ছাত্রছাত্রীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, আজকের এই কৃতি প্র্রজন্মই ভবিষ্যত পৃথিবীকে নেতৃত্ব দেবে। তাদের অর্জিত মেধা একটি সুন্দর পৃথিবী গড়তে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

মহিলা বিষয়ক মন্ত্রী ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন,  মেধা বিকাশের সুযোগ পেলে বাঙালির নতুন প্রজন্ম যে অনেক কিছু করতে পারে আজকের এই অনুষ্ঠানের কৃতি প্রজন্মরা তারই উদাহরণ।

তিনি বলেন, এদের মেধা ও দক্ষতা শুধু ব্রিটেনের উন্নয়নেই কাজে লাগবে তা নয়, এই মেধা ও দক্ষতার উপকারীতা বাংলাদেশও হতে চায়। বিদেশে গড়ে উঠা এই মেধাবী প্রজন্মকে দেশমূখী করতে প্রয়োজনীয় পরিবেশ সৃষ্টিতে বাংলাদেশের রাজনীতিকরা যথাযথ ভূমিকা রাখবেন এমনই আশা করেন তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে হাইকমিশনার বলেন, ব্রিটেনে বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই প্রজন্মের বিটিশ-বাংলাদেশিদের কৃতিত্ব ব্রিটেনের বাংলাদেশী কমিউনিটির আর্থ-সামাজিক উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এই কৃতিত্ব ভবিষ্যত প্র্রজন্মকেও শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে উৎসাহিত করবে।

উল্লেখ্য, ব্রিটেনের ২০১১ সালের জিসিএসই পরীক্ষায় ন্যূনতম ৬টি এ স্টারসহ দশটি এ এবং এ লেভেলে ন্যূনতম তিনটি এ প্রাপ্ত ব্রিটিশ বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রীদেরকে তাদের কৃতিত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলাদেশ হাইকমিশন এই এওয়ার্ডের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে ব্রিটেনের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত প্রায় ১০৬জন ছাত্রছাত্রীকে এই এওয়ার্ড দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০১১

0 comments:

Post a comment

Popular Posts