Syed Anas Pasha

Syed Anas Pasha


বাংলাদেশে ব্যর্থ ক্যু: ব্রিটিশ পার্লামেন্টে আর্লি ডে মোশন


সৈয়দ আনাস পাশা, লন্ডন করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
জন হেমিং এমপি ও এন্ড্রু জর্জ এমপি
লন্ডন: বাংলাদেশে সাম্প্রতিক ব্যর্থ ক্যু প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ‘বাংলাদেশ, ডেমোক্রেসি অ্যান্ড দ্য রুল অব ল’ শীর্ষক একটি আর্লি ডে মোশন আনা হয়েছে।

অবৈধ পন্থায় বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার ওই ব্যর্থ অপচেষ্টার নিন্দা জানাতে  ও দেশটিতে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন অব্যাহত রাখার পক্ষে ব্রিটিশ সরকারকে আরও তৎপর হওয়ার তাগিদ দিতে এই  মোশন আনা হয়।

গত বুধবার মধ্য ইংল্যান্ডের বার্মিংহাম থেকে নির্বাচিত লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির এমপি জন হেমিং পার্লামেন্টে এই আর্লি ডে মোশন আনেন। এমপি হেমিং এর আনা এই মোশনে ব্রিটেনের ওয়েস্ট কর্ণওয়ালের লিবডেম দলীয় আরেক এমপি অ্যান্ড্রু জর্জও সমর্থন দিয়েছেন।

আর্লি ডে মোশনে বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের প্রতি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সমর্থন অব্যাহত রাখার আহ্বান জানানো হয়েছে। মোশনে বাংলাদেশের বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকারকে অসাংবিধানিক পন্থায় বল প্রয়োগে ক্ষমতাচ্যুত করার সাম্প্রতিক অপচেষ্টার সমালোচনা করে বলা হয়, বাংলাদেশের গণতন্ত্র রক্ষায় ব্রিটিশ সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

ব্রিটিশ এমপি জন হেমিং-এর আনা এই আর্লি ডে মোশনে নির্দিষ্ট সংখ্যক এমপি স্বাক্ষর করলে বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও আইনের শাসন অব্যাহত রাখার বিষয়ে পার্লামেন্টের ফুল হাউসে আলোচনা হবে এবং বিষয়টি নিয়ে সরকার নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করবেন।

বাংলাদেশ বিষয়ে আনা এই আর্লি ডে মোশনের প্রতি ব্রিটিশ এমপিদের সমর্থন আদায়ে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটিসহ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে লবিং শুরু হয়েছে। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান শরীফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক এবং নির্মূল কমিটির সহ সভাপতি হরমুজ আলী ও নির্বাহী সদস্য আনসার আহমেদ উল্লা এই ক্যাম্পেইনের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক বাংলানিউজকে জানান, পার্লামেন্টে আনা আর্লি ডে মোশনের পক্ষে নিজেদের এলাকার এমপি’র স্বাক্ষর সংগ্রহের জন্যে ব্রিটেনের বিভিন্ন শহরের আওয়ামী লীগের শাখা কমিটিকে  অনুরোধ জানানো হয়েছে। কোন কোন এমপির সাথে বৈঠকও হয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের।

নির্মূল কমিটির সহসভাপতি হরমুজ আলী বাংলানিউজকে বলেন, আধুনিক বিশ্বে যে এখন আর গণতন্ত্রের বিকল্প নেই, এই বিষয়টি এখন আন্তর্জাতিক পরযায়ে একটি স্বীকৃত বিষয়। ব্রিটিশ রাজনীতিকদের অনেকেই বাংলাদেশের বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার উৎখাতের সাম্প্রতিক ব্যর্থ অপচেষ্টায় হতাশা ব্যক্ত করছেন।

তিনি বলেন, গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে এই ধরনের ষড়যন্ত্র শুধু কোনও একটি নির্দিষ্ট দেশের জন্যই ক্ষতিকর নয়, রাষ্ট্রগুলোর পারস্পরিক আন্তঃসম্পর্কের মধ্যেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। আর এজন্যেই আজকের বিশ্বে গণতান্ত্রিক শাসনকে বাধাগ্রস্থ করে এমন কোন কর্মকান্ডকে কোন দেশই সমর্থন করে না।

ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নেতা আনসার আহমেদ উল্লা বলেন, বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক শাসন অব্যাহত রাখা, সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প থেকে দেশটিকে মুক্ত রাখা, আইনের শাসন পুরোপুরি প্রতিষ্ঠা করতে ৭১ এর যুদ্ধাপরাধসহ সকল রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক হত্যাকান্ডের বিচার নিশ্চিত করা নির্মূল কমিটিরই আন্দোলনের অংশ। আর তাই বাংলাদেশের গণতন্ত্র নিরাপদ রাখতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের গণতান্ত্রিক শক্তির সমর্থন আদায়ের সব ধরনের ক্যাম্পেইনেই নির্মূল কমিটি ভূমিকা রাখতে চায়। ব্রিটিশ পার্লামেন্টে আনা আর্লি ডে মোশন সেই ক্যাম্পেইনেরই ফসল। এটি সফল করতে আমরা আমাদের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

বাংলাদেশ সময় ১৮৫৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১২

0 comments:

Post a comment

Popular Posts