Syed Anas Pasha

Syed Anas Pasha

Banglanews24.com::::: লর্ড অ্যাভিবুরির সঙ্গে বৈঠক: বাংলাদেশে মানবাধিকার পুনরুদ্ধারে ব্রিটেনের সহযোগিতা চাইলেন খালেদা

লন্ডন: বাংলাদেশের জনগণের ‘মানবাধিকার পুনরুদ্ধারে’ ব্রিটেনের সহযোগিতা চেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন ও বিরোধী দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া।

লন্ডন সফররত খালেদা জিয়া বুধবার ব্রিটিশ মানবাধিকার সংগঠক লর্ড অ্যাভিবুরির সঙ্গে বৈঠকে এ আহ্বান জানান।

হাউজ অব কমন্সে বরাদ্দ নেওয়া একটি কামরায় লর্ড অ্যাভিবুরির সঙ্গে বৈঠক হয় তার।

বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে পাঁচটা থেকে ছয়টা পর্যন্ত আধঘন্টার এই বৈঠকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের সাথে ছিলেন দলীয় নেতা শমসের মোবিন চৌধুরী, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, ড. ওসমান ফারুক, সাংবাদিক শফিক রেহমান ও মুশফিকুল ফজল আনসারী প্রমুখ।

লর্ড অ্যাভিবুরির সহকর্মী মানবাধিকারকর্মী সুজিত সেন বাংলানিউজকে জানান, বৈঠকে বাংলাদেশের সর্বশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতি লর্ড অ্যাভিবুরিকে অবহিত করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

তিনি মানবাধিকার লংঘনের বিভিন্ন ঘটনা উল্লেখ করে বলেন,  বাংলাদেশের মানুষ আজ এক বিভীষিকাময় অবস্থায় বসবাস করছে। বিরোধী দলীয় নেত্রী অ্যাভিবুরিকে জানান, ঘর থেকে তুলে নিয়ে মানুষ হত্যা, রাজনৈতিক নেতাদের নির্যাতন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য কর্তৃক বিনা বিচারে ক্রস ফায়ারে হত্যা এখন বাংলাদেশে নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সুজিত সেন জানান, বিরোধী দলীয় নেতাদের ওপর নির্যাতনের প্রমাণ সম্বলিত একটি সিডি ও একটি লিখিত ডকুমেন্ট অ্যাভিবুরির কাছে তুলে দিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতা চৌধুরী আলম আজ এক বছর ধরে নিখোজ। অথচ তাঁর কোনও সন্ধান দিতে পারছে না সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগ। বিনা বিচারে র‌্যাবের মানুষ হত্যার কথা উল্লেখ করে বিএনপি চেয়ারপার্সন অভিযোগ করেন, এসব ঘটনার প্রতিকার তো দূরের কথা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরং উল্টো অভিযুক্তদের পক্ষে সাফাই গাইছেন।

যুদ্ধাপরাধের বিচারের নামে রাজনৈতিক নির্যাতন চালানো হচ্ছে উল্লেখ করে খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন, এই বিচারের জন্যে গঠিত ট্রাইব্যুনালের কাজে কোনও স্বচ্ছতা নেই। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিপক্ষে নন তারা---এমন কথা জানিয়ে বিরোধী দলীয় নেত্রী মানবাধিকার নেতা লর্ড অ্যাভিবুরিকে বলেন, ‘আমরা চাই এই বিচারের সার্বিক কার্যক্রমের স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতা।’

বিএনপি চেয়ারপার্সন যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল সরকারের ক্রীড়ণক হিসেবে তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে এমনই অভিযোগ করেন লর্ড অ্যাভিবারীর কাছে। বিচার বিভাগে সরকার নগ্ন হস্তক্ষেপ চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা অ্যাভিবুরিকে জানান, ‘সরকার আদালতের কাঁধে বন্দুক রেখে তাদের বিভিন্ন দলীয় পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে।’ তিনি জানান সাম্প্রতিক সময়ে আদালতের কিছু বিতর্কিত রায়ের কারণে বাংলাদেশের বিচার বিভাগ ব্যাপকভাবে জনগণের আস্থা হারাচ্ছে ।

বিরোধী দলীয় নেত্রী, বাংলাদেশের জনগণের মানবাধিকার পুনরুদ্ধার, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও রাজনৈতিক দমনপীড়ন বন্ধে ব্রিটিশ সরকারের প্রভাব কাজে লাগাতে লর্ড অ্যাভিবুরিকে তাঁর ভূমিকা রাখার অনুরোধ করেন।

জবাবে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মানবাধিকার নেতা ও প্রবীণ ব্রিটিশ রাজনীতিক লর্ড অ্যাভিবুরি বাংলাদেশের বিরোধী দলীয় নেত্রীর এসব অভিযোগ নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফরেন মিনিস্ট্রির সাথে আলাপ করবেন বলে আশ্বস্ত করেন খালেদা জিয়াকে-- বাংলানিউজকে এমনটি জানান অ্যাভিবুরির সহকর্মী সুজিত সেন। সুজিত জানান, আলোচনায় অ্যাভিবুরি সম্প্রতি পার্বত্য চট্রগ্রামের ঘটে যাওয়া অশান্ত পরিবেশ সম্পর্কে খালেদা জিয়ার বক্তব্য জানতে চান। অ্যাভিবুরি বলেন, পার্বত্য আধিবাসী জনগণের মৌলিক অধিকার রক্ষায় বিএনপিরও অনেক কিছু করার আছে বলে তিনি মনে করেন।

পার্বত্য অঞ্চলে স্থায়ী শান্তি ফিরিয়ে আনতে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ সব দলের ঐকমত্যে আসা উচিত বলেও মত প্রকাশ করেন বৈঠকে প্রবীণ এই ব্রিটিশ রাজনীতিক।

এদিকে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতিতে লর্ড অ্যাভিবুরি খালেদা জিয়ার কাছে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বলে দাবি করেন খালেদা জিয়ার সাবেক প্রেসসচিব মুশফিকুল ফজল আনসারী। বাংলানিউজকে মুশফিকুল ফজল বলেন,অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিসকে ব্যবহার করে বিচার বিভাগে সরকার যে নগ্ন হস্তক্ষেপ করছে তার নিন্দা জানিয়েছেন লর্ড অ্যাভিবুরি।

এর আগে বুধবার সকালে খালেদা জিয়া সাক্ষাৎ করেন ব্রিটিশ ফরেন অফিসের জুনিয়র মিনিস্টার অ্যান্ড্রু বিলিংহ্যামের সাথে। ফরেন অফিস মিনিস্টারের কাছেও বিরোধী দলীয় নেত্রী উপরোক্ত অভিযোগগুলো উত্থাপন করেন। বুধবার বিকেলে কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যান সাঈদা ওয়ারসির সাথে সাক্ষাতের কথা রয়েছে বিএনপি চেয়ারপার্সনের।

বাংলাদেশ সময়: ২২২৫ঘণ্টা,মে ১৮, ২০১১
Link To Article

0 comments:

Post a comment

Popular Posts