Syed Anas Pasha

Syed Anas Pasha

ব্রাসেলসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

লন্ডনঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার ব্রাসেলসে গেলে সেখানে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি মৌলবাদী দল।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের প্রাক্কালে এই বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়। ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের সামনে বিরোধী দলের এই বিক্ষোভের মুখোমুখি পড়তে হয়নি শেখ হাসিনাকে। তিনি যে পথে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে প্রবেশ করেন নিরাপত্তাকর্মীরা বিক্ষোভকারীদের সেখানে ঘেঁষতে দেয়নি।

অন্যদিকে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের সামনে পাল্টা বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ।

বিরোধী দলের বিক্ষোভ কর্মসূচীতে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের বিএনপি নেতাকর্মী ও বাংলাদেশের বিভিন্ন মৌলবাদী দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয়েছিলেন।

স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে নয়টা থেকে ১১টা পর্যন্ত এই বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এতে নেতৃত্ব দেন যুক্তরাজ্য বিএনপি সভাপতি কমর উদ্দিন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ মালেক ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম এ সালাম। বিক্ষোভকারীরা এ সময় বিভিন্ন ব্যঙ্গাত্মক প্লাকার্ড বহন করে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়।

পরে বাংলাদেশের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট বরাবর বিএনপি নেতারা একটি স্বারকলিপি পেশ করেন।

বুধবার বিকেলেও বিএনপি নেতাকর্মীরা ব্রাসেলস এর কনকর্ড হোটেলের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই হোটেলেই অবস্থান করছেন।

যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ মালেক ব্রাসেলস থেকে বাংলানিউজকে বলেন, স্বাধীনতার অতন্দ্র প্রহরী বিএনপিকে ধ্বংস করার যে নীল নকশা প্রণয়ণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী, সেই নীল নকাশার প্রতিবাদ জানানো হলো এই বিক্ষোভের মাধ্যমে।

এদিকে, আওয়ামী লীগের সমাবেশে প্রশ্ন তোলা হয়, ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে বিএনপি, যুদ্ধাপরাধী জামাত ও নিষিদ্ধ ঘোষিত হিজবুত তাহরির কর্মীদের ব্রাসেলসে জড়ো করার মতো অর্থ কোথা থেকে এলো তা জনগণকে জানাতে হবে।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতান শরীফ ব্রাসেলস থেকে বাংলানিউজকে বলেন, আমরা খবর নিয়েছি বিরোধী দল এই বিক্ষোভের নামে প্রায় ২৫ হাজার পাউন্ড খরচ করে ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে লোকজন ব্রাসেলসে এনে সমবেত করেছে।

উল্লেখ্য, ১২ দিনের বিদেশ সফরের অংশ হিসেবে ২৪ নভেম্বর বিকেলে প্রধানমন্ত্রী রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গ থেকে ব্রাসেলস এসে পৌঁছেন। বৃহস্পতিবার ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক করা ছাড়াও আরও দু’টি অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

শুক্রবার প্রবাসী বাঙালিদের পক্ষ থেকে তাকে যে সংবধর্না দেওয়ার কথা ছিল অনিবার্যকারনে বুধবার বিকেলেই প্রধানমন্ত্রী তা বাতিল করেন। শুক্রবার সারাদিন তিনি পারিবারের সদস্যদের সাথে কাটাবেন বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১১ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৫, ২০১০
Link to Article

0 comments:

Post a comment

Popular Posts