Syed Anas Pasha

Syed Anas Pasha

বাংলানিউজ২৪:::::::: সাকা চৌধুরীর ছেলের লবি : ব্রিটিশ এমপি এলিউডের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ আসছেন

লন্ডন: বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীসহ যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত জামায়াত নেতাদের রায় এবার যৌথ তৎপরতা শুরু করেছে ইউরোপ ভিত্তিক পাকিস্তান জামাতে ইসলামি’র সংগঠন ইসলামিক রিলিফ ও বাংলাদেশ জামায়াতের ইউরোপীয় সংস্করণ ইসলামিক ফোরাম ইউরোপ।

আর এদের সাথে সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছেলে ফাইয়াজ কাদের চৌধুরী।

স্বেচ্ছাসেবামূলক কর্মকান্ডের ব্যানারে যুদ্ধাপরাধীদের রার এই নতুন তৎপরতা শুরু করেছে পাকিস্তান ও বাংলাদেশের দুই জামায়াতে ইসলামী।

ব্রিটেনের বর্তমান সময়ের প্রভাবশালী রাজনীতিক কনসারভেটিভ পার্টির চেয়ারপার্সন পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত সাঈদা ওয়ারসীকে সামনে রেখেই এ তৎপরতা শুরু হয়েছে এমনটাই জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র।

তারই ফল হিসেবে  এ ব্রিটিশ এমপি টবিয়াস এলিউডের নেতৃত্বে একটি দল শনিবার বাংলাদেশের উদ্দেশে লন্ডন ছেড়েছেন।
সূত্র জানায়, পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামি সমর্থিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইসলামিক রিলিফের সহযোগিতায় ‘মায়া’ নামের একটি সংগঠনের উদ্যোগে বাংলাদেশের সিলেট অঞ্চলে স্বেচ্ছাসেবামমূলক কর্মকান্ড চালানোর নাম করে ব্রিটিশ এমপি’র নেতৃত্বে দুই দেশের জামায়াত সমর্থকদের একটি গ্র“প বাংলাদেশে যাচ্ছে।

পূর্ব লন্ডনের কনজারভেটিব পার্টির একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাংলানিউজকে জানান, যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছেলে ফাইয়াজ কাদের চৌধুরীর চেষ্টায় এটা সম্ভব হয়েছে। তিনি বলেন, স্বেচ্ছাসেবামূলক কর্মকান্ডের আড়ালে যুদ্ধাপরাধীদের রার নতুন এই তৎপরতায় ব্রিটিশ রাজনীতিক সাঈদা ওয়ারসীকে ব্যবহারে অনেকটা সক্ষম হচ্ছেন তিনি।

এদিকে ব্রিটিশ এই দলটি আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারেন এমন একটি খবরও বাংলানিউজকে জানিয়েছে ঢাকার সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র।

পাকিস্তান জামায়াতের ইউরোপীয় সহযোগী ইসলামিক রিলিফের প্রধান ব্যক্তি সাঈদা ওয়ারসীর আত্মীয় হওয়ায় এেেত্র খুব সহজেই তারা মিজ ওয়ারসীকে ব্যবহার করতে পারছে, এমন কথাই বাংলানিউজকে জানালেন কনজারভেটিভ পার্টির ওই নেতা। তিনি বলেন, ‘দুই জামায়াত ও সাকা তনয়ের নতুন পরিকল্পনা অনুযায়ী কনজারভেটিভ দলীয় ব্রিটিশ এমপি টবিয়াস এলিউডের নেতৃত্বে একটি গ্র“প শনিবার বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে লন্ডন ছেড়েছেন। এই গ্র“পে কনজারভেটিব পার্টির আরেক নেতা জেমস এন্ডারসন এবং বাংলাদেশ জামাতে ইসলামীর ইউরোপীয় সংস্করণ ইসলামিক ফোরাম ইউরোপ (আইএফই) এর মেহফুজ আহমদও রয়েছেন।

প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের সিলেটে কর্মরত ইসলামিক রিলিফ এর সহযোগী সংগঠন ‘মায়া’ র কর্মকান্ড পরিদর্শনের আড়ালে বাংলাদেশ সফরে গেলেও মূলত তারা বিরোধী দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়া ও জামাতে ইসলামীর নেতাদের সাথে বৈঠক করার চেষ্টা করবেন বলেও জানান তিনি।

দৃশ্যমান তৎপরতা হিসেবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সাথেও বৈঠক করার চেষ্টা করবে এই প্রতিনিধি দল, বাংলানিউজকে এমনই তথ্য দিয়েছে একটি বিশ্বস্ত সূত্র।

ব্রিটিশ এমপি টবিয়াস এলিউডের নেতৃত্বে  বাংলাদেশ সফররত এই প্রতিনিধিদলটির কাছ থেকে আন্তর্জাতিক মিডিয়ার জন্যে ‘যুদ্ধাপরাধের অভিযোগের নামে বাংলাদেশ সরকার রাজনৈতিক নেতাদের হয়রানী ও মানরবাধিকার লঙ্ঘন করছে’ এমন বক্তব্যের সমর্থনে কিছু বিবৃতি আদায় করার চেষ্টা করবে। যা ব্রিটেনে প্রকাশ করার পরিকল্পনা রয়েছে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ জামাতের সমর্থকদের।

এদিকে ব্রিটিশ এমপির নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলটি শনিবার লন্ডন ছাড়ার আগেই সিলেট পৌঁছেছেন আইএফই’র আরেক নেতা রেজাউল করিম। এমপি এলিউডের নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধিদলটি রোববার সরাসরি সিলেট পৌঁছবেন।

সেখানে ইসলামিক রিলিফের সহযোগী সংগঠন ‘মায়া’র প্রকল্প পরিদর্শন শেষে সিলেটের মেয়র বদর উদ্দিন কামরানের সাথে বৈঠক করবেন তারা। এই প্রকল্প পরিদর্শন ও মেয়রের সাথে বৈঠকটি আসল উদ্দেশ্যে আড়াল করার একটি কৌশল মাত্র, এমনই মন্তব্য করেছেন কনজারভেটিভ পার্টির সাথে যুক্ত লন্ডনের একজন কমিউনিটি নেতা।

সিলেটের কর্মসূচি শেষেই প্রতিনিধি দলটি ঢাকায় কর্মকা- শুরু করবে তৎপরতা। এর অংশ হিসেবে বিরোধী দলীয় নেত্রীর সাথে সাক্ষাত, জামায়াতে ইসলামীর নেতা ও যুদ্ধাপরাধীদের আইনজীবিদের সাথে বৈঠক করবে প্রতিনিধি দলটি।

সূত্র জানায়, পাকিস্তান জামাতের সংগঠন ইসলামিক রিলিফ ও বাংলাদেশ জামাতের সংগঠন মুসলিম এইড এর প্রকল্পগুলো নিয়ে বাংলাদেশে আরও ব্যাপক আকারে কিভাবে কর্মকান্ড পরিচালনা করা যায়, এবিষয়টিও যাচাই বাছাই করবে এই প্রতিনিধি দল। এক্ষেত্রে চ্যারিটি ওয়ার্কের মত কর্মকান্ডে বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতা আদায় করার পন্থাও খুঁজে দেখবে এই দলটি।

সূত্র জানায়, সাম্প্রতিক সময়ে মানবাধিকার বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের অবস্থান নিয়ে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর রিপোর্ট  সম্পর্কে এমপি এলিউডকে ব্রিফ দেওয়া হয় জামাত সমর্থকদের প থেকে। বলা হয় রাজনৈতিক প্রতিপকে ঘায়েল করতেই যুদ্ধাপরাধের মিথ্যা অভিযোগে সাকা চৌধুরী ও জামাত নেতাদের আটক রাখা হয়েছে। একই ব্রিফ করা হয় সাঈদা ওয়ারসীকেও। পাশাপাশি ইসলামিক রিলিফ এর প থেকেও লবি করা হয় সাঈদা ওয়ারসীর কাছে।

বাংলাদেশ সময় ২৩৪৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১১
Link to Article

0 comments:

Post a comment

Popular Posts